পাক-ভারত নিয়ে শান্তির কথা বলায় সোনমকে সমালোচনা

0
78

কাগজ ডেস্ক: ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে ক্রমবর্ধমান উত্তেজনা হ্রাস ও যুদ্ধের বিরোধীতা করে শান্তির পক্ষে বলার পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে ভারতীয়দের নির্মম সমালোচনার মুখে পড়েছেন জনপ্রিয় বলিউড অভিনেত্রী সোনম কাপুর। সাম্প্রতিক সময়ে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে উত্তেজনা তীব্র আকারে বৃদ্ধি পেলে সোনম কাপুর টুইটারে এক বার্তায় তার যুদ্ধবিরোধী অবস্থানের কথা জানান।
সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে সোনম কাপুর লেখেন,‘যুদ্ধের ফলে ক্ষতি হয় উভয় দেশের সেনার ও সাধারণ মানুষের। সুতরাং যুদ্ধ বন্ধ হোক।’
অন্য একটি বার্তায় ৩৩ বছর বয়সী এই অভিনেত্রী আরো লেখেন,‘যুদ্ধ শুরু হলে পাকিস্তান হোক কিংবা ভারত, ক্ষতি হবে উভয় দেশের। পাকিস্তান ও ভারত উভয় দেশ সমান। উভয় দেশের সমান অধিকার আছে। কিন্তু উভয় দেশের উগ্রবাদীদের কারণেই হচ্ছে এই কর্মকাণ্ড। উগ্রবাদী ও সন্ত্রাসীরা এখন সাধারণ মানুষের মনকে বিষিয়ে তুলছে। তারাই এই যুদ্ধের জন্য দায়ী। যদিও তারা জানে না যে, যুদ্ধের পরিণাম কতো খারাপ হতে পারে। এর ফলে ক্ষতি হয় সাধারণ মানুষের।’
এদিকে সোনম কাপুরের এই কথার বিপরীতে টুইটারে বিভিন্ন বিরূপ মন্তব্য করেছে যুদ্ধ-পাগল ভারতের টুইটার ব্যবহারকারীরা।
সোনম কাপুরকে উদ্দেশ্য করে একজন লেখেন,‘আপনাদের মতো মানুষের জন্যই আজও ভারত ঐক্যবদ্ধ নয়।’
অন্য এক টুইটার ব্যবহারকারী লেখেন,‘আপনার এই মনোভাবের জন্যই কেউ সিনেমায় সুযোগ দেয় না আপনাকে।’
আর একজন লেখেন,‘যে চোখের পানি ফেলতে পারে (কাঁদতে পারে), সেও সোনম কাপুরের চেয়ে ভালো অভিনেত্রী।’
রমণ নামে একজন লেখেন,‘যতক্ষণ না সোনম কাপুর ভারতের জাতীয় সঙ্গীতকে সম্মান জানাতে না শিখতে, ঠিক ততক্ষণ পর্যন্ত (পাকিস্তানের সাথে) যুদ্ধকে হ্যা বলুন।’
কানপুরের অভিজিত নামে একজন লেখেন,‘সোনম কাপুরকে সবাই অবহেলা করুন, কারণ সে বোকা, গাধা।’
ব্রাহ্মন্দা দাস নামে একজন লেখেন,‘সোনম কাপুর হওয়ার চেয়ে আমি ডাক্তারি পড়া (এমবিবিএস) ছেড়ে ভারতের হয়ে যুদ্ধে যেতে রাজি আছি। সোনমের বাবা অনিল কাপুর তার মেয়েকে ‘দেশভক্তি’ শেখাননি।’