এমপিও ভূক্তির আশ্বাসে পথ চেয়ে আছেন হুমায়ুন আহমেদের শহীদ স্মৃতি বিদ্যাপীঠের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা

0
23

হুমায়ুন কবির: নন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ুন আহমেদের স্বপ্নে স্কুল ‘‘শহীদ স্মৃতি বিদ্যাপীঠ। হুমায়ুন আহমেদ ১৯৯৬ ইং সনে স্ত্রীসহ বাবার বাড়ি নেত্রকোণার কেন্দুয়ার কুতুবপুর গ্রামে এসে এলাকার পিছিয়ে পড়া ছেলেমেয়েদেরকে দেখে তাদেরকে শিক্ষার প্রতি আগ্রহী করতে প্রতিষ্ঠা করেন শহীদ স্মৃতি বিদ্যাপীঠ।
কিন্তু দীর্ঘদিনেও এ বিদ্যাপীঠটি এমপিও ভূক্ত না হওয়ার শিক্ষক-কর্মচারীরা খুব কষ্ট করে চালিয়ে যাচ্ছেন তাদের পাঠদান।

হুমায়ন আহমেদের মৃত্যুর পর স্কুলটি পরিচালনা করতে সভাপতির দায়িত্ব নেন তার সহধর্মিনী মেহের আফরোজ শাওন।
তিনি তার ব্যাক্তিগত তহবিল থেকে শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন ভাতাসহ অন্যান্য সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছেন বলে জানান উক্ত শহীদ স্মৃতি বিদ্যাপীঠের প্রধান শিক্ষক আসাদুজ্জামান।
তিনি জানান, হুমায়ুন আহমেদ স্যার ১৯৯৬ ইং সনে কুতুবপুর গ্রামে এই বিদ্যাপীঠ প্রতিষ্ঠার পর নিজেই দেখাশোনা করতেন। ২০০৬ ইং সনে একাডেমিক কার্যক্রম শুরু হওয়ার পর ২০১১ ইং সনে নিম্ন মাধ্যমিক ও ২০১৩ ইং সনে মাধ্যমিক বিদ্যলয়ে স্বীকৃতি পাই। বর্তমানে বিদ্যালয়ে ৩৫৯ জন শিক্ষার্থী ও ১৫ জন শিক্ষক রয়েছেন। এই বিদ্যালয়টি প্রতি বছর জেএসসি, এসএসসি পরীক্ষায় শতভাগ পাসের পাশাপাশি অনেক জিপিএ ৫ পেয়ে আসছে। প্রতিষ্ঠানটি দেখতে প্রতি বছর দেশের অনেক খ্যাতিমান ব্যক্তিবর্গ ছুটে আসেন।

গত শনিবার বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক ও নেত্রকোণা -৩ কেন্দুয়া-আটপাড়া আসনের সংসদ সদস্য অসীম কুমার উকিল এমপি বিদ্যালয়টি পরিদর্শন করে মুগ্ধ হন। এসময় তিনি এমপিও ভূক্ত না হওয়ার বিষয়টি শুনে শিক্ষক কর্মচারীদেরকে এমপিও ভূক্তির জন্য সব রকম চেষ্টা করবেন বলে আশ্বাস প্রদান করেন।
প্রধান শিক্ষক আরও জানান, হুমায়ুন আহমেদ স্যার বলেছিলেন তার প্রতিষ্ঠানে কেউ যেন গাড়ীর বহর নিয়ে না আসেন এবং শিক্ষর্থীরা যেন ফুল নিয়ে দাড়িয়ে থেকে কাউকে অভ্যর্থনা না দেন।
এমপি অসীম কুমার উকিল গাড়ীর বহর ছাড়া এসেছেন এবং আমাদেরকে ফুলের তোড়া দিতে মানা করেছেন। তিনি বিদ্যালয়ের কম্পিউটার ল্যাব পরিদর্শন করে বেহাল দশা দেখে মোবাইল ফোনে ডাক ও টেলি-যোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার এর সঙ্গে কথা বলে কম্পিউটার ল্যাব স্থাপনের আশ্বাস দেন।
এছাড়া বিদ্যালয়ের মাঠ উচুঁ করা, পুকুর খনন, বাউন্ডারি দেয়াল নির্মানসহ বিদ্যালয়ের সড়ক পাঁকাকরণের ঘোষনা দেন এমপি অসীম কুমার উকিল।
শিক্ষক আসাদুজ্জামান বলেন এমপি অসীম কুমার উকিল বিদ্যাপীঠটি এমপিও ভূক্তির আশ্বাস দেওয়ায় আবার আমরা নতুন করে আশায় পথ ছেয়ে আছি। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্ত জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, শহীদ স্মৃতি বিদ্যাপীঠ এমপিও ভূক্ত হওয়ার ক্ষেত্রে শতভাগ যোগ্যতা রাখে।