রায়পুর সরকারী ডিগ্রি কলেজ ১৯ বছর ধরে ছাত্রসংসদ নির্বাচন হয়নি

0
90

তাবারক হোসেন আজাদ: লক্ষ্মীপুর জেলার ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ রায়পুর সরকারী ডিগ্রি কলেজ। এক সময়কার ছাত্র রাজনীতির কেন্দ্রবিন্দু ও জাতীয় রাজনীতিতে ভূমিকা রাখতেন রায়পুর সরকারী কলেজের ছাত্রসংসদের নেতারা। দেশের স্কুলগুলোয় স্টুডেন্ট ক্যাবিনেট নির্বাচন হলেও ঐতিহ্যবাহী এ প্রতিষ্ঠানে গত ১৯ বছর ধরে হয়নি রায়পুর সরকারী কলেজ ছাত্রসংসদ নির্বাচন। সর্বপ্রথম ১৯৮৫-৮৬ সালে ছাত্রসংসদ নির্বাচন হয়। সর্বশেষ নির্বাচন হয়েছিল ২০০০-২০০১ সালে। ৫২ ভাষা আন্দোলন থেকে শুর করে স্বাধীনতার সংগ্রাম, ৯০-এর স্বৈরাচারের পতন পর্যন্ত আমাদের জাতীয় জীবনের সব গুরত্বপূর্ণ ক্ষণে আন্দোলন-সংগ্রামে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন রায়পুর কলেজের ছাত্ররা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডাকসু নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর থেকে আলোচনায় আছে সারা দেশের মত রায়পুর কলেজ ছাত্রসংসদ নির্বাচন। কলেজ প্রশাসন থেকে শুরু করে সাধারণ শিক্ষার্থী রাজনৈতিক ও ক্রিয়াশীল ছাত্র সংগঠনগুলোর আশা অচিরেই সরকারের পক্ষ থেকে নির্বাচনের ব্যাপারে ইতিবাচক সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। রায়পুর সরকারী কলেজ ছাত্রসংসদের ৯২ এর নির্বাচিত ভিপি নজরুল ইসলাম লিটন ও ১৯৯৬ সালের ভিপি আলমগীর হোসেন অশ্রু বলেন, সুষ্ঠু রাজনৈতিক চর্চার জন্য দেশের প্রতিটি প্রতিষ্ঠানে ছাত্রসংসদ নির্বাচন হওয়া জরুরি। সঠিক ছাত্রদের নিয়ে প্রতিনিধিত্ব হলে রাজনীতি ভাল থাকবে এবং মেধাবী শিক্ষার্থী উপকৃত হবে। রায়পুর উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তারেক আজিজ জনি ও কলেজের ছাত্রলীগের আহ্বায়ক মোঃ শরিফ হোসেন বলেন, আমাদের প্রাণের দাবি ডাকসু ও লক্ষ্মীপুর বিশ^বিদ্যালয় কলেজের নির্বাচনের পরই সারা দেশের মত রায়পুর কলেজ ছাত্রসংসদ নির্বাচনের জন্য আমরা প্রস্তুত রয়েছি। অধ্যক্ষের সাথে আমাদের আলোচনা হয়েছে। রায়পুর সরকারী কলেজ ছাত্রদলের আহবায়ক হাবিবুন্নবী কিষান বলেন, সব দলের সহাবস্থান নিশ্চিত করে, ছাত্রসংসদের নির্বাচন চাই। নির্বাচনে অংশগ্রিহনে আমরাও প্রস্তুত রয়েছি। রায়পুর সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মোহাম্মদ মাহ্ধসঢ়;বুবুল করিম বলেন, আমরাও চাই ছাত্রসংসদ নির্বাচন হোক। তবে এ নির্বাচন দেয়াটা স¤র্পূণ সরকারের ওপর নির্ভর করে। সরকার যদি অনুমতি দেয় আমরা নির্বাচন দিতে প্রস্তুত। কলেজের ছাত্র সংসদ নির্বাচন প্রায় ১৯ বছর ধরে বন্ধ। যদি এটার সুষ্ঠু নির্বাচন হয় তাহলে পর্যায়ক্রমে সবগুলো ও সকল দলের অংশগ্রহনে হবে আশা করি।