৬ দিনের বন্ধের কবলে বেনাপোল স্থল বন্দর

0
11
৬ দিনের বন্ধের কবলে বেনাপোল স্থল বন্দর

শহিদুল ইসলাম: ঈদুল আজহা, জাতীয় শোক দিবস ও সাপ্তাহিক ছুটিতে দেশের সবচেয়ে বড় স্থলবন্দর বেনাপোলের সঙ্গে ভারতের পেট্রাপোল বন্দরের টানা ৬দিন আমদানি, রফতানি কার্যক্রম বন্ধ থাকছে। তবে পণ্য আমদানি, রফতানি বন্ধ থাকলেও এ সময় দুই দেশের মধ্যে পাসপোর্ট যাত্রী যাতায়াত স্বাভাবিক থাকবে বলে জানা গেছে।

রোববার (১১ আগস্ট) থেকে ১৬ আগস্ট পর্যন্ত এ পথে সব ধরনের আমদানি, রফতানি বাণিজ্য বন্ধ থাকবে।

কাস্টমস ও বন্দর সূত্রে জানা যায়, ১১ আগস্ট থেকে ১৩ আগস্ট পর্যন্ত তিনদিন ঈদের ছুটি, মাঝে একদিন ১৪ আগস্ট অফিস খোলা থাকলেও কোনো কার্যক্রম হওয়ার সম্ভাবনা নেই, ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসের ছুটি এবং ১৬ আগস্ট সাপ্তাহিক ছুটিতে কার্যক্রম বন্ধ থাকছে। শনিবার ১৭ আগস্ট থেকে পুনরায় আমদানি, রফতানি বাণিজ্য শুরু হবে।

বেনাপোল স্থলবন্দরের পরিচালক (ট্রাফিক) প্রদোষ কান্তি দাস জানান, সরকারি ছুটি বাদে অন্যান্য সব দিন অফিস খোলা থাকবে। এ সময় ব্যবসায়ীরা চাইলে বন্দর থেকে আমদানি পণ্য খালাস নিতে পারবেন। ছুটির মধ্যে বন্দরে যাতে কোনো ধরনের নাশকতামূলক কর্মকাণ্ড না ঘটে তার জন্য নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।

বেনাপোল পোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসেন জানান, ছুটির মধ্যে বেনাপোল বন্দরে বাণিজ্যের সঙ্গে জড়িত সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশ সতর্ক থাকবে।

বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন (ওসি তদন্ত) মাসুম কাজী জানান, ঈদের ছুটির মধ্যেও বেনাপোল ইমিগ্রেশন দিয়ে স্বাভাবিকভাবে যাতে যাত্রীরা যাতায়াত করতে পারে তার জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা থাকছে।

এদিকে বাণিজ্য বন্ধের কারণে বন্দরের দু’পাশে এখনো আমদানি-রফতানি পণ্য নিয়ে প্রায় সহস্রাধিক ট্রাক আটকা পড়ে আছে। এসব পণ্যের মধ্যে শিল্পকারখানার কাঁচামাল জাতীয় পণ্য বেশি রয়েছে।

টানা ছয়দিন বাণিজ্য বন্ধ থাকায় বেনাপোল বন্দরে কর্মরত কাস্টমস, বন্দর ও সরকারি, বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা এবং কর্মচারীরা প্রিয়জনদের সঙ্গে ছুটি কাটাতে ইতোমধ্যে অনেকে গ্রামের বাড়িতে রওনা হয়েছেন। ফলে ব্যস্ততম বেনাপোল বন্দর অনেকটা জনশূন্য থাকতে দেখা গেছে।