বাউফলে ছেলেধরা সন্দেহে এক ব্যক্তিকে গণধোলাই

0
23
বাউফলে ছেলেধরা সন্দেহে এক ব্যক্তিকে গণধোলাই

অতুল পাল: বাউফলে মো. মালেক ফকির(৩৫) নামে এক ব্যাক্তিকে ছেলেধরা সন্দেহে গণধোলাই দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। সোমবার রাত ৯টার দিকে উপজেলা সদর ইউনিয়নের নকুল-নায়েবের হাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে। স্থানীয়দের থেকে জানা গেছে, বাউফল সদর ইউনিয়নের নকুল-নায়েবের হাট এলাকার বাসিন্দা আবুল ডাক্তারের বাড়ির পাশে মালেক ফকিরকে চল (মাছ ধরার এক ধরনের দেশীয় অস্ত্র) হাতে দেখতে পেয়ে আতঙ্কিত হয়ে আবুল ডাক্তারের স্ত্রী লতিফুল বেগম ছেলেধরা বলে ডাক চিৎকার দেন। লতিফুল বেগমের ডাক চিৎকারে এলাকাবাসীরা এগিয়ে এসে মালেক ফকিরকে আটক করে মারধর করে। খবর পেয়ে বাউফল থানা পুলিশ এসে মালেক ফকির এবং আবুল ডাক্তারের স্ত্রী লতিফুল বেগমকে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। পরে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ঘটনার সত্যতা এবং কোনো অভিযোগ না থাকায় মঙ্গলবার সকালে তাদেরকে ছেড়ে দেয়া হয়। মালেক ফকিরের বাড়ি একই ইউনিয়নের অলিপুরা গ্রামে। তার পিতার নাম মো. আসমান ফকির। বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, মালেক ফকির মাছ ধরার জন্য গিয়েছিল। ভুল বোঝাবুঝির কারণে এ ঘটনা ঘটেছে। কোনো পক্ষের কোনো অভিযোগ না থাকায় উভয়কেই স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের জিম্মায় ছেড়ে দেয়া হয়েছে।