বাউফলে শিক্ষার্থীদের পেটানো সেই সভাপতির পদত্যাগ

0
21
বাউফলে শিক্ষার্থীদের পেটানো সেই সভাপতির পদত্যাগ

অতুল পাল: বাউফলের সাবুপুরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষে ঢুকে শিক্ষার্থীদের পেটানো সেই সভাপতি পদত্যাগ করেছেন। সোমবার সন্ধায় বাউফল উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা শিক্ষা কমিটির নির্বাহী সহসভাপতির কাছে পদত্যাগপত্র জমা দেন। উপজেলা নির্বাহী অফিস পদত্যাগপত্র পাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তবে সভাপতির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার প্রক্রিয়া চলছে বলে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার এই প্রতিনিধিকে জানিয়েছেন। উল্লেখ্য, গত রোববার (২১ জুলাই) উপজেলার সাবুপুরা প্রাথমিক বিদ্যালয় ব্যবস্থাপণা কমিটির সভাপতি মো. জালাল উদ্দিন মৃধা বেলা আড়াইটার দিকে ক্লাস চলাকালিন তৃতীয়, চতুর্থ ও পঞ্চম শ্রেণির শ্রেণি কক্ষে ঢুকে শিক্ষার্থীদের চুল ধরে লাঠি দিয়ে এলোপাতারি পিটিয়ে আহত করেন। এসময় কিছু শিক্ষার্থী ভয়ে বিদ্যালয় ভবনের ছাদে অবস্থান নিলে সভাপতি সেখানে গিয়েও শিক্ষার্থীদের পেটান। এঘটনায় সোমবার(২২ জুলাই) বিদ্যালয়ের ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে বিক্ষোভ করে। ওই ঘটনায় বিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হলে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সবিতা রানী পাল ঘটনাটি উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারকে অবহিত করেন। ঘটনা শুনে বাউফল উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. রিয়াজুল হক ও সহকারি শিক্ষা অফিসার মো. মঈনুল ইসলাম ঘটনাস্থলে ছুঁটে যান। তাদের সামনেই সভাপতি শিক্ষকরা ঠিকভাবে ক্লাস করেন না বিধায় ক্ষোভে শিক্ষার্থীদের পেটানোর কথা স্বীকার করেন। ঘটনার পর সভাপতি মো. জালাল উদ্দিন মৃধা উপস্থিত শিক্ষা অফিসার, শিক্ষক ও অভিভাবকদের কাছে ক্ষমা চান এবং সোমবার বিকেলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার পিজুস চন্দ্র দে’র সাথে দেখা করে তার কাছেও ক্ষমা চান। এরপর শিক্ষা কমিটির সভাপতি বরাবরে তার পদত্যাগপত্র জমা দেন। শিক্ষা কমিটির সভাপতি উপজেলা চেয়ারম্যানের অনুপস্থিতিতে নির্বাহী সহ সভাপতি হিসেবে উপজেলা নির্বাহী অফিসার তার পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেন এবং বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপণা কমিটির সহসভাপতি নীলিমা আক্তারকে সভাপতির দায়িত্ব দেন। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার জানান, সভাপতির বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য তাদের বিভাগীয় তদন্ত প্রতিবেদন উপজেলা নির্বাহী অফিসার, জেলা প্রশাসক, জেলা শিক্ষা অফিসার এবং প্রাথমিক শিক্ষা

অধিদপ্তরের বরিশাল বিভাগীয় উপপরিচালককে দেয়া হয়েছে। তাদের অনুমতি পেলে পদত্যাগ করা সভাপতির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে এই বিষয়ে মো, জালাল উদ্দিন মৃধার সাথে যোগাযোগ করেও তাকে পাওয়া যায়নি।