উল্লাপাড়ায় একই কবরস্থানে দাফন হলো নববধু সুমাইয়া ও তার ভাবী

0
52
উল্লাপাড়ায় একই কবরস্থানে দাফন হলো নববধু সুমাইয়া ও তার ভাবী

সাহারুল হক সাচ্চু: সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় আজ মঙ্গলবার বেলা এগারোটায় রেল পথে দুর্ঘটনায় নিহত নববধু সুমাইয়া খাতুন ও তার ভাবী মমতা খাতুনকে একই সময়ে জানাযা নামাজ শেষে নিজ গ্রামের কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। নিহত সুমাইয়া খাতুন উল্লাপাড়ার এনায়েতপুর গুচ্ছ গ্রামের গফুর শেখের মেয়ে ও তার ভাবী মমতা খাতুনের স্বামী হলেন আশরাফ আলী। গতকাল সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে উল্লাপাড়া সলপ রেল ষ্টেশনের পূর্ব প্রান্তে ঢাকা-ঈশ্বরদী রেল পথের বেতকান্দি হাটখোলা ঢালুতে রেলের লেভেল ক্রসিংয়ে নববধু সুমাইয়া খাতুন ও তার বর সিরাজগঞ্জের কান্দাপাড়া গ্রামের আলতাব হোসেনের ছেলে রাজন শেখসহ ১০ নিহত হয়। নিহতদের ৮ জন বর রাজন শেখের পরিবারের আত্মীয় স্বজন বলে জানা যায়। রাজশাহী থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী আন্তঃনগর ট্রেন পদ্মা এক্সপ্রেস ও বর-কনেসহ বর যাত্রী বাহী মাক্রোবাসের মধ্যে সংঘর্ষে এ দুর্ঘটনা ঘটে। জানা যায় লেভেল ক্রসিংয়ে মাইক্রোবাসটি পার হওয়া কালে দ্রুতগামী ট্রেনটি মাইক্রোবাসটি ঠেলে প্রায় আধা কিলোমিটার দুরে নিয়ে যায়। এ দুর্ঘটনায় ঘটনাস্থানেই নয় জন ও হাসপাতালে একজন মারা যায়। এ দুর্ঘটনার পর উল্লাপাড়া থানা পুলিশ, কামারখন্দ থানা পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস দ্রুত ঘটনাস্থানে এসে লাশ উদ্ধার করে। এরপর লাশ গুলো সিরাজগঞ্জ নেওয়া হয়। আজ মঙ্গলবার ভোর রাতে নিহতদের পরিবারদের কাছে সিরাজগঞ্জ প্রশাসন থেকে লাশ গুলো হস্তান্তর করা হয়। ভোর সাড়ে চারটার দিকে সুমাইয়া খাতুন ও তার ভাবীর লাশ এনায়েতপুর গুচ্ছ গ্রামে নিজ বাড়ীতে আনা হয়। এদিকে দুর্ঘটনার পর থেকেই এনায়েতপুর গুচ্ছগ্রাম বাসীদের মাঝে শোক দেখা দেয়। এদের লাশ আনার পর গ্রামের লোকজন তাদের বাড়ীতে উপস্থিত হয়। এ সময় সবার মাঝে গভীর শোক দেখা দেয়। এরপর বেলা এগারোটার দিকে নিহত দু’জনকে স্থানীয় কবরস্থানে দাফন করা হয়। জানা গেছে উল্লাপাড়া এ দুর্ঘটনা নিয়ে রেল বিভাগ থেকে চার সদস্যের একটি তদন্ত গঠন করা হয়েছে।