সিরাজগঞ্জে ট্রেনের ধাক্কায় বর-কনেসহ মাইক্রোবাসের ৯ জন নিহত

0
160
সিরাজগঞ্জে ট্রেনের ধাক্কায় বর-কনেসহ মাইক্রোবাসের ৯ জন নিহত

সাহারুল হক সাচ্চু: সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় আজ সোমবার সন্ধ্যায় ঈশ্বরদী-ঢাকা রেলপথের উল্লাপাড়ার সলপ রেলষ্টেশনের নিকট হাটখোলা রেলক্রসিং পাড় হওয়ার সময় বরযাত্রী বহনকারী একটি মাইক্রোবাসের সাথে রাজশাহী থেকে ঢাকাগামী আন্তঃনগর পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনের সাথে সংঘর্ষে বর কনে সহ ৯ জন নিহত হয়েছে। নিহতরা হলো- বর রাজন আহমেদ, নববধু সুমাইয়া খাতুন, মমতাজ বেগম, শরিফ শেখ, আজম খান ও মাইক্রোবাসের চালক স্বাধীনের পরিচয় পাওয়া গেছে। এলাকাবাসী, ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সোমবার সন্ধ্যা ছয়টা ৩০ মিনিটের দিকে রাজশাহী থেকে ঢাকাগামী পদ্মা ট্রেনটি দ্রুতগতিতে সলপ রেল ষ্টেশন পাড় হয়। সলপ রেলষ্টেশনের অর্ধ কিলোমিটার উত্তরে অরক্ষিত রেলগেটে তখন একটি মাইক্রোবাস রেল লাইন পার হচ্ছিল। মাইক্রোবাসটি রেল লাইন পাড় হওয়ার আগেই পদ্মা ট্রেনটি রেলগেটে এসে মাইক্রোবাসটিকে সজোরে ধাক্কা দেয়। ট্রেনের ধাক্কায় রেল ইঞ্জিনের সাথে মাইক্রোবাসটি আটকে প্রায় অর্ধ কিলোমিটার দূরে টেনে হেঁচড়ে সাহিকোলা গ্রামের নিকট নিয়ে যায়। এ সময় ওই গ্রামের লোকজন সাহিকোলা গ্রামের কাছে ট্রেনটি প্রায় ৪০ মিনিট অবরোধ করে রাখে। উল্লাপাড়া থানা পুলিশ ও উল্লাপাড়া ফায়ার সার্ভিসের ষ্টেশন মাস্টার নাজির হোসেন জানান, সিরাজগঞ্জ উপজেলার কালিয়াকান্দাপাড়া গ্রামের আলতাব হোসেনের ছেলে রাজন আহমেদ সোমবার দুপুরে উল্লাপাড়ার চরঘাটিনা গুচ্ছগ্রামের আব্দুল গফুর শেখের মেয়ে সুমাইয়াকে বিয়ে করতে আসে। বিয়ে শেষে সন্ধ্যা পৌনে ছয়টার দিকে নববধুকে নিয়ে রাজন সহ ১২ জন মাইক্রোবাসে করে বাড়ি ফেরার পথে এ দূর্ঘটনার শিকার হয়। দূর্ঘটনার পর পর উল্লাপাড়া ফায়ার সার্ভিস, থানা পুলিশ ও স্থানীয় জনগন উদ্ধার কাজে এগিয়ে আসে। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত লাশ গুলো দূর্ঘটনাস্থলে রয়েছে।