নেত্রকোনায় ট্রেনের ধাক্কায় এক পথচারী ও লড়ির চাপায় নারী নিহত

0
24
নেত্রকোনায় ট্রেনের ধাক্কায় এক পথচারী ও লড়ির চাপায় নারী নিহত

হুমায়ুন কবির: নেত্রকোনার বাহির চাপড়া এলাকায় ট্রেনের ধাক্কায় অলি মিয়া (৫০) নামের এক পথচারী নিহত হয়েছেন। রবিবার সকাল ১১ টার দিকে মোহনগঞ্জ থেকে ময়মনসিংহগামী ট্রেনটি রাজুর বাজার এলাকায় পৌঁছলে বাহির চাপড়া লেভেল ক্রসিংয়ের অদূরেই এ ঘটনা ঘটে। অলি মিয়া বাহির চাপড়া এলাকার হোসেন বক্সের ছেলে।
পুলিশ ও নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, রেল লাইনের পাশ ধরে রাজুর বাজার লেভেল ক্রসিংয়ের অদূরে হাঁটছিলো। এসময় ট্রেনটি যাওয়ার পথে অলি মিয়ার মাথায় আঘাত পেয়ে গুরুতর আহত হলে স্থানীয়রা উদ্ধার করে নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে আসে। পরে সেখান থেকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার সময় পথিমধ্যে তার মৃত্যু হয়।
এ ব্যাপারে নেত্রকোনা মডেল থানার ওসি মোঃ তাজুল ইসলাম সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, খবর পেয়েই আমরা জিআরপি পুলিশকে অবহিত করেছি।
নেত্রকোনার পূবর্ধলা উপজেলার শ্যামগঞ্জ সিধলা এলাকায় লড়ির চাপায় নিহত হয়েছেন পঞ্চাষোর্ধ এক নারী সাহেরা খাতুন (৫০)। রবিবার সকালে শ্যামগঞ্জ যাওয়ার পথে এ দূর্ঘটনা ঘটে। পরে খবর পেয়ে পূর্বধলার থানার পুলিশ লাশ উদ্ধার করে নেত্রকোনা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। তবে ঘাতক লড়ি বা চালককে আটক করতে পারেনি।
নিহতের স্বজন শেফালি আক্তার জানান, গত প্রায় ১০ বছর ধরে তার ননদ সাহেরা ভারসাম্যহীন ছিলেন। তার বাবার বাড়ি সদর উপজেলার বালুয়াখলি গ্রামে। শ্যামগঞ্জ সিধলা গ্রামের হিরা মিয়ার সাথে তার বিয়ে হয়। গত ১০ বছর ধরে এমন অবস্থা হওয়ার পর থেকে দীর্ঘদিন ধরে তাকে চিকিৎসা দিয়ে আসলেও তিনি ঔষধ খেতেন না। বাড়িতে নিয়ে আসলেও বেড়িয়ে যেতেন। যেখানে খুশি সেখানে ঘুরে বেড়াতেন। পূবর্ধলা থানা থেকে খবর দিলে তারা জানতে পারেন এই দূর্ঘটনার কথা। পরে লাশ নিতে হাসপাতাল মর্গে আসেন।