সাঁথিয়ায় বাল্যবিয়ে রোধে রাতভর ইউএনও’র অভিযানে বিয়ে পন্ড, মসজিদের ইমাম পলাতক

0
69
সাঁথিয়া উপজেলার গলাগাছি গ্রামের ফজর আলীর বাড়িতে বাল্য বিবাহ রোধে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আব্দুল হালিম।

আব্দুদ দাইন: পাবনার সাঁথিয়ায় বাল্যবিয়ে রোধে সোমবার রাতভর বিয়ে বাড়িতে বাড়িতে অভিযান চালালেন সাঁথিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার। বিয়ে থেকে রক্ষা পেলো ৮ম শ্রেণির দুই ছাত্রী। বাল্যবিয়ে পড়ানোর অভিযোগে মসজিদের ইমামের বাড়িতে অভিযান। ইমাম পলাতক। জানা যায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সোমবার রাত ৮টায় উপজেলার কাশিনাথপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে বাল্যবিয়ে রোধে বিয়ে বাড়িতে বাড়িতে অভিযান চালান সাঁথিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আব্দুল হালিম। ইউনিয়নের কলাগাছি গ্রামের ফজর আলীর ৮ম শ্রেণিতে পড়–য়া মেয়ে মেধাবী ছাত্রীকে ওই রাতেই বিয়ে দেয়ার প্রস্তুতি চলছিল। নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আব্দুল হালিম বিয়ে বাড়িতে উপস্থিত হয়ে বিয়ে পন্ড করে দেন এবং মেয়ের বাবার নিকট থেকে মেয়ে বিয়ের বয়স না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দিবে না মর্মে মুচলেকা নেওয়া হয়। একই ইউনিয়নের মেহেদী নগর গ্রামের হারুন অর রশিদের বাড়িতে একই দিনে অভিযান চালিয়ে তার মেয়ের বাল্যবিয়ে পন্ড ও মুচলেকা গ্রহণ করেন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আব্দুল হালিম। জানাগেছে, মেহেদী নগর গ্রামের সিদ্দিক মোল্লার মেয়ের বাল্যবিয়ে পড়ানোর কারণে মেহেদীনগর মসজিদের ইমাম দেলোয়ার হোসেনকে আটকের জন্য রাতেই অভিযান চালান নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আব্দুল হালিম। ইমাম পলাতক থাকায় তাকে আটক করা সম্ভব হয়নি। এসময় উপসহকারী প্রকৌশলী নাসির উদ্দিন, ইউপি সদস্য শহিদুল ইসলাম, বিবাহ নিবন্ধক ইসমাইল হোসেন কিরণ উপস্থিত ছিলেন। নির্বাহী অফিসার আব্দুল হালিম জানান, বাল্য বিয়ে একটি সামাজিক ব্যাধিতে পরিনত হয়েছে।। এ থেকে জাতিকে রক্ষা করতে হবে। উপজেলায় বাল্যবিয়ে, মাদক ও জুয়ার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। বাল্যবিয়ে, জুয়া ও মাদকের সংবাদ পেলেই অভিযান পরিচালনা করা হবে।