কেশবপুরে জমি নিয়ে বিরোধ: প্রতিপক্ষের বসতবাড়ি ভাংচুর ও মালামাল লুট

0
24

জি এম মিন্টু: কেশবপুরের মোমিনপুরে জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষরা আমির হোসেনের বসতবাড়ি ভাংচুর , লুটপাট ও মারপিট করে আহত করেছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ ঘটনায় কেশবপুর থানায় লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে।
জানা গেছে, উপজেলার মোমিনপুর মোড়ল পাড়ার পীরবক্স মোড়লের ছেলে আমির হোসেনের সাথে নওয়াব আলী মোড়লের ছেলে রিজাউল মোড়লের জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিলো। তারই জের ধরে বুধবার রিজাউল মোড়লের নেতৃত্বে তার সহযোগী আব্দুল গফফার , আব্দুল গফুর, নওয়াব আলী, তানিয়া খাতুন ও রাবেয়া খাতুনসহ অজ্ঞাতানামা একদল ব্যক্তি আমির হোসেনের বসত ঘর ভাংচুর করে । এসময় তারা ঘরের মধ্যে থাকা লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুটপাট করে নেয়। খবর পেয়ে বাধা দিতে আসলে তারা আমির হোসেনকে মারপিট করে আহত করে। এলাকাবাসী আহত আমির হোসেনকে মুমুর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে কেশবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেছেন। এঘটনায় আমির হোসেন বাদি হয়ে কেশবপুর থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।
এবিষয়ে রিজাউল মোড়ল ঘর ভাংচুর , লুটপাট ও মারপিটের অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, পৌতৃক সুত্রে আমরা ওই জমিটা পেয়েছি। আমির হোসেন আমাদের জমি দখল করে দীর্ঘদিন ধরে ভোগদখল করে আসছিল। ওই জমি নিয়ে আমির হোসেনের সাথে আমাদের বিরোধ দীর্ঘদীনের। স্থানীয় মেম্বর, চেয়ারম্যান ও থানা পুলিশের মাধ্যমে একাধিকবার শালিস করা হলেও সুষ্ঠু সমাধান হয়নি। এবিষয় নিয়ে মঙ্গলবার পারিবারিকভাবে মিটিং করেছি। মিটিংয়ের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বুধবার আমরা ওই ঘর সরিয়ে নিতে বললে আমির হোসেন সরাতে অপারগতা প্রকাশ করেন। তখন আমরা একটি গোয়াল ঘরের চাল ও বেড়া খুলে দিয়েছি। সেখানে কোন মালপত্র ছিলোনা ।
এবিষয়ে কেশবপুর থানায় উপপরিদর্শক ফরিদউদ্দীন আহমেদ জানান, ঘরবাড়ি ভাংচুরের খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। জমি নিয়ে বিরোধের সুত্র ধরে এঘটনা ঘটেছে। এবিষয়ে একটি অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।