লক্ষ্মীপুরে নির্মাণ শ্রমিক নিখোঁজ, হত্যার পর লাশ গুমের অভিযোগ

0
64

রবিউল ইসলাম: লক্ষ্মীপুরে ৫০ বছর বয়সী নুর আলম নামের এক নির্মাণ শ্রমিককে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছেনা। তবে তার শোবার ঘরের বিছানাটি রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছে। এতে করে পরিবার বলছে পুর্ব বিরোধের জের ধরে তাকে হত্যার পর লাশটি গুম করে রাখা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার (০৩ মার্চ) ভোর রাতে সদর উপজেলার দক্ষিন হামছাদি ইউনিয়নের গোপিনাথপুর গ্রামে। খবর পেয়ে সদর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলেও ঘটনার সঠিক তথ্য দিতে পারেনি তারা। নিখোঁজ নুর আলম ওই গ্রামের প্রবাসী মমিন গাজীর নির্মিতব্য ভবনের নির্মাণ শ্রমিক ও পাহারাদার ছিলেন। তিনি স্থানীয় ভূইয়া বাড়ির মৃত শামছুল হকের ছেলে। জানা যায়,স্থানীয় গৌপিনাথপুর গ্রামের বড়িশার বাড়ির প্রবাসী মমিন গাজীর পাকা ঘর নির্মাণ কাজ করতো নুর আলম। কাজ শেষে রাতে পাহারাদার হিসেবে পাশের টিনসেট একটি ঘরে থাকতো সে। শনিবার রাতে তার নিজ বাড়ী থেকে খাবার খেয়ে এসে ওই ঘরে ঘুমিয়ে ছিল। রবিবার সকালে অন্যান্য শ্রমিকরা কাজ করতে এসে তার বিছানা রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন। এবং তাকে খুঁজে না পেয়ে পরিবারের লোকজনকে খবর দেয়। খবর পেয়ে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। নিখোঁজ শ্রমিকের স্ত্রী শাহনাজ বেগম ও মামা মমতাজ মিয়া অভিযোগ করে বলেন, নুর আলমের সাথে প্রবাসী মমিন গাজীর ভাই ইসমাইল ও তার (ইসমাইলে) ছেলে রাসেলের সঙ্গে বিরোধ চলে আসছিল। পরিকল্পিত ভাবে তাকে হত্যার পর লাশ গুম করে রেখেছে বলে অভিযোগ করেন তারা। ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবী করেন তারা। এদিকে ঘটনার পর থেকে অভিযুক্তরা পলাতক রয়েছে বলে জানান স্থানীয়রা। এ ব্যাপারে লক্ষ্মীপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ লোকমান হোসেন বলেন ধারণা করা হচ্ছে ঘুমন্ত অবস্থায় নির্মাণ শ্রমিককে আঘাত করার পর তাকে গুম করা হয়েছে। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।